বৃহস্পতিবার, ২৯ জুলাই ২০২১, ০৭:২৪ অপরাহ্ন
সর্বশেষ খবর :
বিএসএমএমইউ ৬০০ নার্স নিয়োগ দেবে করোনায় দেশে ৩২ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ২,১৩১ আ.লীগ বিচার বহির্ভূত হত্যাকাণ্ডের বিরুদ্ধে: তথ্যমন্ত্রী সরকারের দুঃশাসনের সীমা ছাড়িয়ে গেছে: রিজভী রেমিটেন্সের ইতিবাচক ধারা অব্যাহত খালেদা জিয়ার সাজা স্থগিতের মেয়াদ বাড়াতে পরিবারের আবেদন চিরনিদ্রায় শায়িত রাহাত খান সিনহা হত্যা: পুলিশের মামলার তিন সাক্ষী চারদিনের রিমান্ডে এইচএসসি পরীক্ষা নিয়ে অনিশ্চয়তা কাটছে না ‘১লা সেপ্টেম্বর থেকে আগের ভাড়ায় চলবে গণপরিবহণ’ সিলেটে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৫ পুতিনের মেয়ের শরীরে অ্যান্টিবডি তৈরি করেছে রুশ ভ্যাকসিন ভারতে করোনা আক্রান্ত ছাড়াল ৩৪ লাখ পুলওয়ামায় লস্কর-ই-তৈয়বার তিন জঙ্গি নিহত ঘুর্ণিঝড় লরায় যুক্তরাষ্ট্রে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৪ জনে ‘পুতিন একটু চা খাও’ বিশ্বে করোনায় সুস্থ হয়েছেন এক কোটি ৭২ লাখের বেশি করোনায় সবচেয়ে বিপর্যয়ের মুখে যুক্তরাষ্ট্র ভারতে ৮৭ হাজারের বেশি স্বাস্থ্যকর্মী করোনায় আক্রান্ত ইউরোপে আবারও বাড়ছে করোনা সংক্রমণ
বিজ্ঞপ্তি :
চলছে পরীক্ষামুলক সংবাদ প্রচার

‘রাজনৈতিক কৌশল হিসেবে বিএনপি নেতাদের জড়ানো হয়েছে’

রিপোর্টারের নাম / ৩২৬ জন দেখেছেন
প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ২৯ জুলাই ২০২১, ০৭:২৪ অপরাহ্ন

২১শে আগস্ট গ্রেনেড হামলার নিন্দা জানিয়েছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি বলছেন, ক্ষমতায় থাকাকালীন বিএনপি জড়িতদের বিচারের আওতায় আনলেও আওয়ামী লীগ এই ঘটনাকে রাজনৈতিকভাবে ব্যবহার করছে।

অন্যদিকে, গ্রেনেড হামলার সুষ্ঠু তদন্ত না হওয়ার দায় বিএনপির বলে জানিয়েছেন দলটির চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা হাবিবুর রহমান হাবিব। হামলার কুশিলবদের আড়াল করতে জজমিয়াকে যারা সামনে এনেছিল, তাদেরও বিচার চান তিনি।

তদন্ত ও বিচারেও বলা হয় ভয়াবহ একুশে আগস্ট গ্রেনেড হামলার পরিকল্পনা চূড়ান্ত করা হয় সেসময়ের ক্ষমতার বিকল্প কেন্দ্র হাওয়া ভবন থেকে। বিচারে অভিযুক্ত হন বিএনপি জামায়াত জোট সরকারের স্বরাষ্ট্রপ্রতিমন্ত্রীসহ বেশ কজন মন্ত্রী। দন্ডিত হন সেই সরকারের সবচেয়ে ক্ষমতাধর বলে পরিচিত তারেক রহমান।

বিএনপি বলছে, এ হামলা নিন্দনীয় এবং কখনোই কাম্য নয়। বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন,’যেহেতু একটি রাজনৈতিক দলের সভা এবং দলের প্রধান ছিলেন, সেখানে এ ঘটনাটি ঘটেছে। এ ধরণের সন্ত্রাসী হামলার আমরা তীব্র নিন্দা তখনও জানিয়েছি, এখনও জানাই। দুর্ভাগ্যজনকভাবে বাংলাদেশে এমন ঘটনা অনেক বারই ঘটেছে।’

১৬ বছর আগের ২১শে আগস্ট শনিবার। সূর্য অস্ত যাবার তখনো অনেকটা বাকি। কিন্তু একের পর এক ঘাতকের গ্রেনেডের গর্জনে কেঁপে ওঠে বঙ্গবন্ধু এভিনিউ এলাকা। আওয়ামী লীগের সমাবেশে আসা নেতাকর্মীদের রক্তস্রোত আর আর্তচিৎকারে মুহুর্তেই ভারি হয়ে ওঠে পুরো বাংলাদেশ।

এই হামলার পর তখনকার বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের পক্ষ থেকে তদন্তের নামে সামনে এনেছিল জজ মিয়া নামের এক ব্যক্তিকে। সময় গড়ানোর সাথে সাথে একে একে বেরিয়ে আসে এই হামলার পেছনের কাহিনী। বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা হাবিবুর রহমান হাবিব বলেন,’বিচারিক প্রক্রিয়া অবশ্যই ঠিক হয়নি। জজ মিয়া যে নাটকটা তারা সাজিয়েছিল। সেটা তারা বুঝেছিলো। এই দায় অবশ্যই বিএনপিকে নিতে হবে। বিএনপি’র এই দায় থেকে কোনভাবেই পরিত্রান পবার সুযোগ নাই। তবে এটুকু আমি বলবো, বিএনপি কেন আওয়ামী লীগও সিন্ধান্ত নিয়ে , বিরোধী দলের কোন নেতাকে মেরে ফেলার চেষ্টা করবে না।’

বিএনপি মহাসচিব বলছেন, এই হামলায় জড়িত জঙ্গিদের বিচার হলেও পরে বিএনপি নেতাদের যোগ করা হয়েছে। মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর আরও বলেন,’সে সময়ে যে তনন্ত হয়েছে, পরে তো আবার তিনবার তদন্ত হয়েছে। তারেক রহমানের তো সেখানে ছিল না। পরে সেটা যোগ করা হয়েছে। যে লোককে দিয়ে এটা করা হয়েছে মুফতি হান্নান, তাকে তাড়াহুড়া করে ফাঁসিও দিয়ে দেয়া হয়েছে।পরবর্তিতে তার যে এভিডেন্স সে প্রসঙ্গে সে বলেছিলো, এগুলো আমি বলিনি। আমাকে দিয়ে জোর করে বলানো হয়েছে।’


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ সংক্রান্ত খবর